আসল হিরো! এক অনাথ মেয়ের পড়াশোনার সমস্ত দায়ভার নিজের কাঁধে তুলে নিলেন আল্লু অর্জুন

একটা সময় বলিউড মানুষের গর্বের জায়গা হলেও এখন সেসব অতীত। দক্ষিণী ঝড়ে রীতিমত কুপোকাত হয়ে পড়েছে বলিউড ইন্ডাস্ট্রি। আর সাথে সাথে মানুষের পছন্দের তালিকাতেও এবার উঠে আসছে দক্ষিণী তারকাদের নাম। আগে যেখানে বলিউড স্টারদের আইকন মানা হতো সেই জায়গায় এখন শোনা যাচ্ছে সাউথ স্টারদের নাম।

সময়ের সাথে সাথে টলি তারকাদের সাফল্য এবং জনপ্রিয়তা এমনই জায়গায় পৌঁছেছে যে এই তারকারা প্রায়ই কোনো না কোনো কারণে খবরের শিরোনামে থাকেন। আজকের প্রতিবেদনেও এমনই এক তারকার কথা বলব যিনি কেবল নিজের অভিনয়ই নয়, পাশাপাশি সোশ্যাল ওয়ার্কের মাধ্যমেও মানুষের মন জিতে নিয়েছেন।দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির এই অভিনেতা আর কেউ নন, তিনি আল্লু অর্জুন। আজকে তার সফলতার কথা নতুন করে বলার কিছু নেই। অভিনেতার সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘পুষ্পা’র সাফল্যের কথা গোটা দেশ জানে। তবে সম্প্রতি আল্লু অর্জুন সম্পর্কে এমন একটা খবর সামনে এসেছে যা শোনার পর থেকেই হইচই পড়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। এমনকি সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ডিংয়ে চলে এসেছেন তিনি।

সূত্রের খবর, কিছুদিন আগে অভিনেতা আল্লু অর্জুন কেরালার একজন ছাত্রীকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন যিনি জন্মসূত্রে মুসলিম। চলতি বছরের দ্বাদশ পরীক্ষায় ৯২ শতাংশ নম্বর নিয়ে পাশ করেছেন তিনি। কয়েক বছর আগে কোভিড অতিমারিতে বাবাকে হারিয়েছেন।এমতাবস্থায় যখন তার পাশে দাঁড়ানোর কেউ ছিলনা সেই সময়ই মেয়েটির পড়াশোনার যাবতীয় দায়ভার নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন আল্লু অর্জুন। সূত্রের খবর, লেখাপড়া শিখে একজন ভালো নার্স হতে চায় সে। মেয়েটির এই স্বপ্ন পূরণের সফরে তার সাথে শামিল হয়েছেন খোদ আল্লু অর্জুন।

এই বিষয়টি বিস্তারিত বর্ণনা করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন কেরালা রাজ্যের আলাপুজা জেলার জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ভিআর কৃষ্ণ তেজা নিজেই। তিনি লিখেছেন, আমরা মেয়েটির চোখে আশা এবং আত্মবিশ্বাস দেখেছি, অবশেষে সে একটি বেসরকারি কলেজে ভর্তি হয়েছে।’ পাশাপাশি তিনি আরো বলেন, মেয়েটির পড়াশোনার জন্য আগামী ৪ বছরের কলেজ ফি এবং হেস্টেল খরচ দেওয়ার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছেন আল্লু অর্জুন। খবরটি প্রকাশ্যে আসতেই ধন্য ধন্য পড়ে গেছে দেশজুড়ে।

About Tolly Desk

Check Also

Viral video : মদের নেশায় বুঁদ এক ব্যক্তি, তেড়ে গেলেন একজোড়া কুমিরের দিকে, তারপর যা হল

বর্তমান যুগে আট থেকে আশি মানুষ কোনো না কোনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করেন। ধীরে …