Jannah Theme License is not validated, Go to the theme options page to validate the license, You need a single license for each domain name.
Bangla Serial

Ekka Dokka: এই তো ডিভোর্স হল এর মধ্যেই প্রাক্তন স্ত্রীর প্রতি আবার প্রেম উথলে পড়ছে পোখরাজের!

প্রত্যহ রাত ৯টায় স্টার জলসার দিকে চোখ রাখলেই দেখা যাবে এই ধারাবাহিক ‘এক্কা দোক্কা’। দুই পরিবারের গল্পের সাথে দুই বন্ধুর সম্পর্ক নিয়ে শুরু এই ধারাবাহিক। ধারাবাহিকের মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে সোনামণি সাহা ‘রাধিকার’ চরিত্রে এবং সপ্তর্ষি মৌলিককে ‘পোখরাজের’ ভূমিকায়। রাধিকার পরিবারের সঙ্গে পোখরাজদের পরিবারের রেষারেষি দেখিয়েই শুরু এই ধারাবাহিক। যা দেখে বোঝা গিয়েছে যে রাধিকা ও পোখরাজের পরিবারের শত্রুতা বহুদিনের।

এই দুই পরিবারের জন্য প্রথমদিকে রাধিকা আর পোখরাজও একে ওপরের শত্রু হয়ে উঠেছিল। দুজনেই ডাক্তারির ছাত্র। তবে দুজনের এই রেষারেষির মধ্যেও আস্তে আস্তে তাঁদের একে অন্যের জন্য টান তৈরী হয়। একে অপরকে ভালোবাসতে শুরু করে তারা। তারপর রাধিকা এবং পোখরাজের বিয়ে হয়ে যায়। কিন্তু তার পুরোপুরি বিরুদ্ধে ছিল পোখরাজের মা ‘শর্মিষ্ঠা’। সে প্রথম থেকেই তাদের আলাদা করতে চায়। আর এরপরই গল্পের মোড় ঘুরে যায়।

পোখরাজের বাড়িতে রাধিকাকে চরম হেনস্থার মুখে পড়তে হয়, অপমানিত হতে হয়, শোনানো হয় নানান কটু কথা। এমনকি ধারাবাহিকে দেখানো হয় পোখরাজের মা রাধিকাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয়। এরপর রাধিকা আর পোখরাজ-এর মধ্যেও সমস্যা দেখা দেয়। বর্তমানে তারা একে অপরকে ডিভোর্স দিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এরমধ্যেই ফের দর্শকদের কাছে প্রকাশ পেল দুজনের মধ্যেই লুকিয়ে থাকা ভালোবাসা।

ধারাবাহিকে দেখানো হয়, রাধিকা রাতে বাড়ি ফেরার সময় কিছু বাজে ছেলের ফাঁদে পরে। আর তখনই সেখানে উপস্থিত হয় পোখরাজ। ছেলেগুলোর সঙ্গে মারপিঠ শুরু হয়। সেই মারপিঠে পোখরাজের মাথা ফেটে যায়। ফলে রাধিকা ভয় পেয়ে যায়। তারপরই হাসপাতালে নিয়ে যায় পোখরাজকে। সেখানে পোখরাজের পাশেই সারাক্ষন বসে থাকে রাধিকা। এদিকে পোখরাজের বাড়িতেও খবর দেওয়া হয়। কিন্তু রাধিকা পোখরাজকে ছেড়ে যায় না।

বারংবার পোখরাজ রাধিকাকে চলে যাতে বললেও সে রাজি হয় না। রাধিকা বলে, তার পরিবার তাকে অপমান করলেও তাতে তার কোনোও সমস্যা নেই। কিন্তু সে সেখান থাকে ততক্ষন যাবে না যতক্ষণ তার পরিবার না আসে। অন্যদিকে রাধিকাকে পোখরাজের সাথে দেখে শর্মিষ্ঠা রেগে যায়। সে তখনই রাধিকাকে কটু কথা শোনায়। কিন্তু সেই কথার ভ্রূক্ষেপ না করেই রাধিকা তাদের জানায়, ‘আমি ডাক্তার তাই পেসেন্ট পোখরাজের সাথে থাকার অধিকার আমার আছে’। এরপর কি হবে তা জানার জন্য অবশ্যই দেখতে হবে ‘এক্কাদোক্কার’ পরবর্তী পর্ব। সমস্ত বাঁধা অতিক্রম করে আবার রাধিকা- পোখরাজ কি এক হতে পারবে? সেটাই এবার দেখার বিষয়।

Related Articles

Back to top button