Jannah Theme License is not validated, Go to the theme options page to validate the license, You need a single license for each domain name.
Bollywood

নোরাকে বিলাসবহুল গাড়ি, কোটি টাকার ব্যাগ সব কিনে দিয়েছি: সুকেশ

বলিউডের আইটেম গার্ল নোরা ফাতেহির সঙ্গেও যোগাযোগ ছিল সুকেশ চন্দ্রশেখর। এমনকি নোরাকে একটি বিলাসবহুল গাড়ি এবং ২ কোটি টাকার একটি ব্যাগও দিয়েছিলেন এই ভারতীয় ব্যবসায়ী। বর্তমানে, সুকেশ 200 কোটি টাকার আর্থিক কেলেঙ্কারির মামলায় জেলে রয়েছেন। সেখান থেকে লেখা চিঠিতে এমন চাঞ্চল্যকর দাবি করেছেন তিনি।

চিঠিতে সুকেশ আরও বলেন, ‘জ্যাকুলিন আমার কাছে কিছু চায়নি, আমি তাকে ভালোবাসার জন্য সবকিছু দিয়েছি। ৫০ লাখ টাকার আর্থিক জালিয়াতির বিষয়ে তিনি কিছুই জানতেন না। 200 কোটি টাকা। সুকেশ দাবি করেছেন যে কিছু দিন আগে নোরা আবেদন করেছিলেন যে জ্যাকুলিন তাকে অকারণে অপমান করছেন। তাকে মানহানি করে ক্যারিয়ার শেষ করতে এ মামলায় তার নাম জড়িয়েছে। কিন্তু তা সত্য নয়।

এছাড়া ২০ তারিখে লেখা চিঠিতে সুকেশ আরও দাবি করেন, ইডির কাছে নোরা যে স্টেটমেন্ট দিয়েছিলেন আর ইকোনমিক অফেন্স উইং-এ যে স্টেটমেন্ট তিনি দিয়েছেন, সেই দুটি আলাদা। এর পিছনে নোরার খারাপ উদ্দেশ্য রয়েছে, সেই কারণেই তিনি পুরো বিষয়টি ম্যানিপুলেট করতে চাইছেন।

চিঠিতে সুকেশ চন্দ্রশেখর আরও বলেন, নোরা সবসময় জ্যাকুলিনকে ঈর্ষান্বিত হতেন। জ্যাকুলিনের বিরুদ্ধে সুকেশকে ব্রেনওয়াশ করতে দ্বিধা করেননি নোরা। নোরা চায় সুকেশ জ্যাকুলিনের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করে তার সাথে থাকুক। নোরা তাকে দিনে ১০ বার ফোন করত। ফোন না ধরলে একটানা ফোন করতেন। তিনি সুকেশের কাছ থেকে একটি বিলাসবহুল গাড়ি নিতে অস্বীকার করেছিলেন, তিনি চিঠিতে বলেছিলেন যে এটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

এছাড়া সুকেশও দাবি করেছেন যে নোরা তার গাড়ি বদলাতে মরিয়া ছিলেন। তার নিজের গাড়িটি তার চিপ বলে মনে হয়েছিল। আমি তাকে একটি গাড়ি কিনে দিই। আমি প্রমাণ হিসাবে সেই চ্যাটের সমস্ত স্ক্রিনশট ইডি-কে পাঠিয়েছি। তার একটি রেঞ্জ রোভার কেনার কথা ছিল। কিন্তু বিএমডব্লিউ ফাইভ সিরিজ কেনা হলো। কারণ তার তাড়া ছিল। নোরা গাড়িটি নিজের নামে না নিয়ে তার বন্ধুর স্বামী ববি খানের নামে নিবন্ধন করেন।

নোরার সঙ্গে কোনও পেশাগত লেনদেন হয়নি বলেও জানিয়েছেন সুকেশ। ব্যবসায়ী জানান, একটি অনুষ্ঠানের জন্য তাকে একবারই অফিসিয়াল পেমেন্ট দেওয়া হয়েছিল। জ্যাকলিনের সঙ্গে আমার সম্পর্ক ছিল, তাই নোরাকে এড়িয়ে চললাম। ববির মিউজিক কোম্পানি গড়তেও সাহায্য চেয়েছিলেন নোরা। টাকাও দিয়েছি। এমনকি নোরা বিভিন্ন সময়ে হার্মিস ব্যাগ, গয়না চেয়েছে, আমি সব কিনেছি। তার ব্যাগের দাম ২ কোটি টাকা। মরক্কোতে বাড়ি কেনার জন্য নোরাও মোটা অঙ্কের টাকা নিয়েছেন।

কিন্তু নোরা ED-কে বলেন, ‘আমাকে সুকেশের স্ত্রী 2020 সালের ডিসেম্বরে চেন্নাইয়ের একটি অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। সেখানে আমাকে জানানো হয়েছিল যে আমাকে একটি আইফোন, একটি গুচি ব্যাগ এবং একটি BMW উপহার হিসেবে দেওয়া হবে। আমি ব্যাগ ও ফোন নিলাম কিন্তু গাড়িটা আমার জামাইকে দেওয়া হলো। আর্থিক কারণে তিনি 2021 সালে সেই গাড়িটি বিক্রি করেছিলেন। কোটি টাকার আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগ অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজের বিরুদ্ধে। 200 কোটি টাকা। এই মামলায় এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) চার্জশিট ইতিমধ্যেই দিল্লির পাতিয়ালা আদালতে জমা দেওয়া হয়েছে।

ইডি বলছে, মামলার প্রধান অভিযুক্ত কনম্যান সুকেশ চন্দ্রশেখর জ্যাকুলিনের জন্য তিনটি দেশে বাড়ি কিনেছিলেন। এর মধ্যে রয়েছে শ্রীলঙ্কা, বাহরাইন, ভারত। সুকেশ মুম্বাইয়ের জুহুতে জ্যাকুলিনের জন্য একটি বাংলো কিনে অগ্রিমও করেছিলেন।

Related Articles

Back to top button